স্বাগতম

“গিলাবাড়ী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়”-এ আপনাকে সু-স্বাগতম। এই বিদ্যালয়টি ঠাকুরগাঁও জেলা সদর টাঈন নদী ঘেঁষে ০১/০১/১৯৯৪ খ্রিষ্টাব্দে প্রতিষ্ঠা হয় যার ইতিহাস অনেক সমৃদ্ধ। বিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠার পূর্বে এলাকার মানুষ ছিল অন্ধকারে কারন এলাকায় কোন উচ্চ বিদ্যালয় ছিল না। সর্বোচ্চ প্রাথমিক শিক্ষাই ছিল একমাত্র অবলম্বন। এই কথা চিন্তা করে এলাকার জনসাধারনকে নিয়ে বর্তমান প্রধান শিক্ষন জনাব মো: শাহজাহান-ই-হাবিব এই প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তোলে। এই বিদ্যালয়ে প্রায় ছয় শতাধিক ছাত্র/ছাত্রী রয়েছে। শিক্ষার পাশাপাশি ছাত্রছাত্রীদেরকে নিয়মকানুন, চরিত্রগঠন,দেশপ্রেম,ধর্মীয় বিষয়ের উপর গুরুত্ব দেওয়া হয়। এই প্রতিষ্ঠানে আছে বিশাল খেলার মাঠ, সমৃদ্ধ পাঠাগার, আধুনিক ল্যাব, শহিদ মিনারসহ আধুনিক আসবাপত্র যা বিদ্যালয়কে আরো আলোকিত করেছে। এই বিদ্যালয়ের শিক্ষক মন্ডলী অনেক অভিজ্ঞ,পরিশ্রমি ও জ্ঞানী যা ছাত্র/ছাত্রীদেরকে প্রতিষ্ঠিত হতে অনুপ্রানিত করে। এই বিদ্যালয়টির অনেক বৈশিষ্টের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে যে গরীব ছাত্র/ছাত্রীদেরকে পড়াশুনা চালিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে সর্বোচ্চ সহযোগীতা করা হয়। এই প্রতিষ্ঠানটিকে বাংলাদেশের সেরা প্রতিষ্ঠানদের মধ্যে একটি করতে আপনাদের সকলের দোয়া ও সহযোগীতা কামনা করছি। “গিলাবাড়ী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়”-এ আপনাকে সু-স্বাগতম। এই বিদ্যালয়টি ঠাকুরগাঁও জেলা সদর টাঈন নদী ঘেঁষে ০১/০১/১৯৯৪ খ্রিষ্টাব্দে প্রতিষ্ঠা হয় যার ইতিহাস অনেক সমৃদ্ধ। বিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠার পূর্বে এলাকার মানুষ ছিল অন্ধকারে কারন এলাকায় কোন উচ্চ বিদ্যালয় ছিল না। সর্বোচ্চ প্রাথমিক শিক্ষাই ছিল একমাত্র অবলম্বন। এই কথা চিন্তা করে এলাকার জনসাধারনকে নিয়ে বর্তমান প্রধান শিক্ষন জনাব মো: শাহজাহান-ই-হাবিব এই প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তোলে। এই বিদ্যালয়ে প্রায় ছয় শতাধিক ছাত্র/ছাত্রী রয়েছে। শিক্ষার পাশাপাশি ছাত্রছাত্রীদেরকে নিয়মকানুন, চরিত্রগঠন,দেশপ্রেম,ধর্মীয় বিষয়ের উপর গুরুত্ব দেওয়া হয়। এই প্রতিষ্ঠানে আছে বিশাল খেলার মাঠ, সমৃদ্ধ পাঠাগার, আধুনিক ল্যাব, শহিদ মিনারসহ আধুনিক আসবাপত্র যা বিদ্যালয়কে আরো আলোকিত করেছে। এই বিদ্যালয়ের শিক্ষক মন্ডলী অনেক অভিজ্ঞ,পরিশ্রমি ও জ্ঞানী যা ছাত্র/ছাত্রীদেরকে প্রতিষ্ঠিত হতে অনুপ্রানিত করে। এই বিদ্যালয়টির অনেক বৈশিষ্টের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে যে গরীব ছাত্র/ছাত্রীদেরকে পড়াশুনা চালিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে সর্বোচ্চ সহযোগীতা করা হয়। এই প্রতিষ্ঠানটিকে বাংলাদেশের সেরা প্রতিষ্ঠানদের মধ্যে একটি করতে আপনাদের

সভাপতির বানী

Head Teacher

ঠাকুরগাঁও জেলা সদর টাঈন নদী ঘেঁষে ০১/০১/১৯৯৪ খ্রিষ্টাব্দে প্রতিষ্ঠা হয় “গিলাবাড়ী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়” যার নামকরন করেছেন প্রধান শিক্ষক জনাব মো: শাহজাহান-ই-হাবিব। অবহেলিত এবং শিক্ষায় পিছিয়ে থাকা এলাকাকে আলোকিত করার মহান প্রয়াসে স্থানীয় জনসাধারনকে উজ্জ্বীবিত করে ১৯৯৪ খ্রিষ্টাব্দে তিনি এই বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন, স্থানীয় জনসাধারন এই প্রতিষ্ঠানটিকে এলাকার ‘আলোক বর্তিকা’ বলে মনে করেন। বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠার যদিও মাত্র কয়েক বছর কিন্তু বিদ্যালয়টি বর্তমানে স্ব-মহিমায় মহিমান্বিত। বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি ,শিক্ষক/কর্মচারী, অভিভাবক ও শিক্ষার্থী উভয়ের মধ্যে একটি পরিবারের মত মিলবন্ধন অটুট। যা অনেককে আকৃষ্ট করেছে। আর এজন্য ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হিসেবে আমি গর্ববোধ করি। প্রত্যাশা রইল এই বিদ্যালয়ের বর্তমান ছাত্র-ছাত্রীরা বিশ্বয়নের যুগে সমস্থ চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে নিজেদেরকে উপযুক্ত করে গড়ে তুলবে এবং আলোকিত দেশ গঠনের তাদের ভূমিকা খাকবে।

ধন্যবাদান্তে

আহম্মদ রাজা
সভাপতি
গিলাবাড়ী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়
সদর, ঠাকুরগাঁও।

প্রধান শিক্ষকের বাণী

Head Teacher

গিলাবাড়ী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় , ঠাকুরগাঁও সদর , ঠাকুরগাঁও পরিবর্তিত সময়ের দাবির প্রেক্ষিতে এই এলাকার পিছিয়ে থাকা বঞ্চিত মানুষদের জ্ঞানের আলোয় আলোকিত করার নিমিত্তে স্থানীয়দের সংগঠিত করে “ গিলাবাড়ী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় নামকরন দিয়ে জমি রেজিষ্ট্রি সহ ০১/০১/১৯৯৪ খ্রিষ্টাব্দ থেকে পূর্বানমতি পেয়ে ০১/০১/১৯৯৫ খ্রিষ্টাব্দে শিক্ষক ও কর্মচারীদের নিয়োগ প্রত্রিয়া সম্পন্ন করে সামান্য সংখ্যক ছাত্রছাত্রীকে নিয়ে এই বিদ্যাপী এর যাত্রা শুরু হলেও ২০১৬ খ্রিষ্টাব্দে এসে বিদ্যালয়টি আজ নিজ মহিমায় মহিমান্বিত । বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠার পূর্বে এলাকাটি ছিল অনগ্রসর এবং অনেকাংশে অবহেলিত । আজ সবদিকে গতি এসেছে । নারী শিক্ষার ক্ষেত্রে এবং আলোকিত সমাজ গঠনে এই বিদ্যালয়টির অবদান অপরিসীম। বিদ্যালয়টির ছাত্রছাত্রী শুধু পড়াশুনারয় নয় বরং তারা প্রতিষ্ঠানটির সুনাম-সুখ্যাতি অক্ষুন্ন রাখাসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক এবং শিক্ষা কার্যক্রম অংশগ্রহন ও ভাল মানুষ হওয়ার প্রত্যয়ে শফত নিয়েছে। যে প্রত্যাশা নিয়ে এই বিদ্যাপী এর যাত্রা শুরু হয়েছিল তা আজও কমেনি বরং বহুলাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে। আমি আশা এবং বিশ্বাস করি আগামী দিনগুলোতে এই বিদ্যাপীট এর অগ্রগাত্রা উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাবে। এছাড়া সু-শিক্ষা এবং আলোকিত সমাজ ও দেশ গঠনে অগ্রনী ভূমিকা পালন করবে। এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আমরা একে অন্যের সহায়ক স্বজন। শ্রদ্ধায়, স্নেহে এবং ভালবাসায় অনন্য পরিবার,সমাজ ও দেশ গড়ার দায়াত্ব আমাদের সবার। তাই তো শুধু ফলাফল নয় ভাল মানুষ তৈরী করা এবং ডিজিটাল ও দূর্নীতিমুক্ত দেশ গড়ার অংশীদার হওয়া আমাদের প্রানের অংগীকার।

More

দিনপুঞ্জি

আজকের বাংলা তারিখ
  • আজ মঙ্গলবার, ২৫শে জুলাই, ২০১৭ ইং
  • ১০ই শ্রাবণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ (বর্ষাকাল)
  • ১লা জ্বিলকদ, ১৪৩৮ হিজরী